দুগ্ধ দান কারী নারীই চুরি করে নবজাতকটিকেঃ পুলিশ

দুগ্ধ দান কারী নারীই চুরি করে নবজাতকটিকেঃ পুলিশ

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ড থেকে তিন দিন বয়সী নবজাতক চুরির ঘটনায় একই পরিবারের ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শনিবার (২ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে সরাসরি শিশু চুরির ঘটনায় জড়িত নারী নুসরাত তার স্বামীসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলো- নুসরাতের স্বামী নাজমুল হোসেন তুষার, শ্বাশুড়ি নাহার বেগম ও ননদ নাদিরা ওরফে খুরশিদা।

রবিবার (৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর মিন্টু রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মোহাম্মদ আশরাফ হোসেন।

তিনি বলেন, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে রাজমিস্ত্রী হিরোন মিয়া ও সাহানা বেগম দম্পতির পুত্র শিশুর জন্ম হয়। সিজারের মাধ্যমে জন্ম নেওয়া নবজাতক মায়ের দুধ পাচ্ছিল না। এই সময়ে একই ওয়ার্ডে ভর্তি থাকা নুসরাত দুধ দানে এগিয়ে আসেন। তার নবজাতক আইসিইউতে থাকায় তিনি এই সহযোগিতা করেন।

শিশু চুরির বিষয়ে ডিসি আশরাফ বলেন, তিন দিন ধরে সাহানার নবজাতককে দুগ্ধ দান করে আসছিলেন। এই সময়ে তার শিশুটি আইসিইউতে থাকায় তার শিশুটির বেঁচে থাকার নিশ্চয়তা না থাকায় তিনি হাসপাতাল থেকে শিশুটিকে চুরি করে নিয়ে যান। এরপর শিশুটিকে নিয়ে আজিমপুর এলাকায় শিশুটিকে স্বামী তুষারের হাতে তুলে দেয়। এরপর ফের হাসপাতালের বেডে এসে শুয়ে থাকেন। আর তুষার শিশুটিকে তাদের বাসায় নিয়ে যায়।

ডিসি আরও বলেন, এই ঘটনার তথ্য পেয়ে শাহবাগ থানা পুলিশ হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা যায় নুসরাত নবজাতকটিকে কোলে নিয়ে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে যাচ্ছেন। পরবর্তীতে তাকে জিজ্ঞাবাদে চুরির বিষয়টি স্বীকার করে৷ পরবর্তীতে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাজধানীর কামরাঙ্গীচর এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে স্বামী, শ্বাশুড়ি ও ননদকে গ্রেফতার করা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নুসরাত সিজারের রোগী। সে অসুস্থ থাকায় থানা পুলিশের হেফাজতে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বাকিদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। নুসরাত সুস্থ হলে তাকেও গ্রেফতার করা হবে।

editor

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *